ভালোবাসার গল্প

  সালেক মিয়া জ্বর হয়ে দুই দিন ধরে কাজে যেতে পারছে না৷ সে রিক্সা চালায়, কাজে না গেলে ইনকাম বন্ধ, খাওয়াও জুটবে না!! ক্ষুধায় কাহিল লাগছে। সকালে কাজে যাওয়ার সময় সুফিয়া উকি দিয়ে দেখে গেছে। সে পাঁচ বাসায় ছুটা কাজ করে, রান্না করে দেবার সময় নাই ! আর যে মেজাজ, চটাং চটাং করে কথা বলে […]

বিস্তারিত

ফেরা

  শুভমিতা যখন রায়চৌধুরী বাড়ির সামনে এসে দাড়ায়, তখন দুপুরের রোদের তেজ কমেছে। বাড়িটা জরাজীর্ণ হয়ে গিয়েছে একেবারেই। শুভমিতার পূর্বপুরুষদের বাড়ি, শুভমিতার বুকের মধ্যে একটা কাঁপন লাগে, কোথাও যেন একটা চিনচিনে ব্যাথা নাড়া দেয়। বাড়ির সামনে সাইনবোর্ড লাগানো ‘বাহাউদ্দীন ম্যানসন’। পাথরে খোদাই করা ‘রায়চৌধুরী বাড়ি’ এর উপর জোর করে বসানো হয়েছে যেন। বাড়ির সামনের গেটটা […]

বিস্তারিত

অতিথি

  শায়লা দাঁড়িয়ে ছিলো বাসার সামনে। আরিফ নতুন বাসায় মালামালগুলো তুলছিলো। আরিফের সাথে সাহায্য করছে দুজন ভ্যানওয়ালা, তবে শায়লাদের আসবাবপত্র খুব বেশি নয়। সংসারও বেশিদিনের নয়। এই বাসাটা মেইনরোডের একদম সাথেই। এখান থেকে আরিফ অফিসের বাস ধরতে পারবে সহজেই। তাছাড়া মেইনরোড সাথে হওয়ায়, নিরিবিলি হবে না কখনো। ওদের ফ্ল্যাটের সামনে লম্বা বারান্দা। শায়লা ভাবছিল, এই […]

বিস্তারিত